--- বিজ্ঞাপন ---

কোচকে পিটিয়ে আজীবন নিষিদ্ধ ভারতীয় ক্রিকেটার

0

নিউজ ডেস্ক: দলে সুযোগ না পাওয়ায় খোদ কোচকে পেটালেন ভারতীয় ক্রিকেটার অনুজ দেধা। আর এই কোচ ভারতীয় ক্রিকেটে অপরিচিত কেউ নন। বর্তমানে অনূর্ধ্ব-২৩ দলের কোচের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন ভারত জাতীয় দলের সাবেক পেসার অমিত ভাণ্ডারি। আর সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে দিল্লিতে কোচ অমিতকেই পিটিয়ে জখম করেন ক্রিকেটার অনুজ দেধা। ইতিমধ্যেই ক্রিকেটার অনুজ দেধাকে আজীবনের জন্য নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে দিল্লি ক্রিকেট এসোসিয়েশন (ডিসিএ)। সোমবার দিল্লির স্টিফেন গ্রাউন্ডে চলছিল অনূর্ধ্ব-২৩ দলের অনুশীলন। সেখানেই কোচ অমিত ভাণ্ডারির ওপর অতর্কিত হামলা চালায় একদল যুবক। রীতিমতো মাটিতে ফেলে দল বেঁধে মারধর করা হয় দিল্লি দলের নির্বাচক প্রধানকে। হকি স্টিক ও রড দিয়ে ভাণ্ডারির ওপর আক্রমণ চালানো হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয় ভাণ্ডারিকে। জানা যায়, দল গঠন করা নিয়েই এই হামলার শিকার হন ভাণ্ডারি। ওই ঘটনার নেপথ্যে ছিলেন দিল্লি অনূর্ধ্ব-২৩ দলের ক্রিকেটার অনুজ দেধা এবং তার ভাই নরেশ। এ ঘটনায় তোলপাড় ভারতের ক্রিকেট মহল। এমন ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিরেন্দর সেওয়াগ, গৌতম গম্ভীর, বিষেণ সিং বেদীসহ সাবেক তারকা ক্রিকেটাররা। টুইটারে সেওয়াগ লিখেছেন, ‘এ ধরনের ঘটনা অত্যন্ত লজ্জাজনক। দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে আশা করি। ভবিষ্যতে যেন এর পুনরাবৃত্তি না ঘটে, সেদিকেও নজর রাখা উচিত।’ সৈয়দ মুস্তাক আলী টুর্নামেন্টের জন্য চূড়ান্ত প্রস্তুতিতে ব্যস্ত দিল্লি অনূর্ধ্ব-২৩ দল। সোমবার ট্রায়াল চলাকালেই ভাণ্ডারির কাছে দলে সুযোগ না পাওয়ার কারণ জানতে চান এবং ভাণ্ডারিকে চড় মারেন ক্রিকেটার অনুজ দেধা। দিল্লির ডেপুটি পুলিশ কমিশনার নূপুর প্রসাদ জানান, এরপর ১০-১৫ দুষ্কৃতিকারী চড়াও হয়ে বেধড়ক মারধর করে জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার ভাণ্ডারিকে।’ পরে অভিযুক্ত অনুজ দেধা ও তার ভাই নরেশকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ২০১৮’র নভেম্বরে ৭৯ জনের প্রাথমিক তালিকায় নাম ছিল দেধার। কিন্তু সৈয়দ মুস্তাক আলী ট্রফির জন্য চূড়ান্ত ট্রায়ালে নাম না আসায় সে এমন কাণ্ড ঘটায়।

আপনার মতামত দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.