--- বিজ্ঞাপন ---

স্কুটি এখন অপর্ণা চৌধুরীর নির্ভরযোগ্য বাহন !

0

রাজু চৌধুরী: চট্টগ্রামের নারীরাও এখন আর পিছিয়ে নেই, পুরুষদের সাথে সমান পাল্লা দিয়ে ছুটে চলেছেন স্বাবলম্বী হতে, সংসারে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে করছেন যথেষ্ট পরিশ্রম. চট্টগ্রামের মেয়ে অর্পনা চৌধুরী, তিনি একজন কর্মজীবী মহিলা,তিনি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর স্বাস্থ্য চাকুরী করেন , চাকুরীর পাশাপাশি সংসারের যাবতীয় কাজ সামলান, ব্যবসায়ী স্বামীর ব্যস্ত জীবনে সব ক্ষেত্রে অর্পনাকে সহযোগিতা করার সময় পান না তাই কিছু কিছু দায়িত্ব অর্পনাকেও পালন করতে হয় .সেই কাজ গুলোর অন্যতম হো মেয়েকে স্কুলে নিয়ে যাওয়া , অর্পনার নিত্য সঙ্গী এখন স্কুটি অর্পনা বলেন, স্কুটি যে কত উপকার করে তা আগে বুঝতে পারিনি, অর্পনা মনে করেন প্রতিটি নারীর বাহন স্কুটি হওয়া উচিৎ কেননা গাড়ি চড়তে মহিলাদের নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হয় অর্পনা বাইক চালানো শিখেছেন নগরীর সি. আর.বি পাহাড়ে প্রশিক্ষক খতিজা বেগম রুনার কাছে .সেখানে আরো অনেক নারী স্কুটি চালানো শিখতে আসেন শিমুল খান ,রেবেকা, রুনা, দেবযানী , পম্পি,আরিফা, হীরা সহ আরো অনেকেই. অর্পনা জানান, সেখানে আরো অনেক নারী প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন রুনার কাছে .অর্পনা কথা প্রসংগে স্বামীর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন বর্তমান ডিজিটাল যুগে বাস্তব পরিস্থিতি উপলব্ধি করে স্কুটি চালাতে উৎসাহ দেওয়ার জন্য .তিনি জানান ,পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নারীরা স্কুটি চালান এবং বিভিন্ন কাজে যাতায়াত করার জন্য প্রধান বাহন হিসাবে স্কুটি ব্যবহার করেন, ঢাকায় অনেক আগে থেকে মহিলারা স্কুটি চালালেও চট্টগ্রাম খুবই কম সংখ্যক মহিলা বাইক বা স্কুটি চালান . অর্পনা বলেন , সকালে রাস্তায় প্রতিটি মোড়ে কর্মজীবী মহিলা এবং ছাত্রী চোখে পড়বে তারা সকলেই বাস ,টেম্পো কিংবা অন্য বাহনের জন্য অপেক্ষারত , আর যানবাহন ঠিক মতো অনেক সময় পাওয়াও যায়না তাই বেশির ভাগ সময় ধাক্কা ধাক্কি করে, চাপা- চাপি করে কর্মস্থলে পৌঁছাতে হয়, বেশির ভাগ সময় নারীরা গাড়িতে শারীরিক ও মানসিক ভাবে লাঞ্চিত হন প্রতিনিয়ত আবার অনেক সময় রিক্সা ও সিএনজি অটো রিক্সা চালকরা সুযোগ বুঝে অতিরিক্ত টাকা দাবী করে তাই মহিলা বা ছাত্রীরা সব সময় অসহায় হয়ে পড়েন কিন্তু যাদের সামর্থ আছে একটি স্কুটি ক্রয় করার তারা যদি স্কুটি বা বাইক ব্যবহার করে তবে সময় এবং অর্থ দুইটাই সাশ্রয় হবে, অর্পনা আরো বলেন , দেশের উন্নয়নে নারীদের অবদান কম নয় তাই নারীদের আর হেয় করার সুযোগ নেই তাই প্রতিটি পুরুষের উচিৎ নারীদের উৎসাহ দিয়ে আরো এগিয়ে দেওয়া.মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নারীদের উন্নয়নে অনেক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন , প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে নারীদের ভূমিকা অনেক তাই আধুনিক বিভিন্ন ব্যবহার্য জিনিসের মতো নারীরা যেন বাইক বা স্কুটি বাহন হিসাবে সহজে ক্রয় করতে পারে তার জন্য সরকার বিশেষ সুবিধা দেওয়া দরকার . অর্পনা মনে করেন এখন সংখ্যায় কম হলেও এমন একদিন আসবে চট্টগ্রামেও মেয়েরা সকল সংকোচ ভুলে প্রয়োজনের তাগিদে স্কুটি বা বাইক চালাবেন এবং তাঁকে স্কুটি চালাতে দেখে অনেকেই উৎসাহিত হবে বলে মনে করেন.

আপনার মতামত দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.