--- বিজ্ঞাপন ---

ঠাকুরগাঁওয়ের সুবিধাভোগী মহিলাদের ভিজিডির সঞ্চয়ের মুনাফা কেটে নেওয়ার অভিযোগ

0

মো. মজিবর রহমান শেখ, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি: ২০১৭-২০১৮ সালের দুস্থ্য মহিলাদের উন্নয়ন (ভিজিডি) কর্মসূচির আওতায় ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের সুবিধাভোগীদের সঞ্চয়ের টাকা কেটে নিয়েছে রানীশংকৈল উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি ৩ মার্চ রবিবার ৪ নং লেহেম্বা ইউনিয়ন পরিষদে দুস্থ্য মহিলাদের মুনাফাসহ সঞ্চয়কৃত টাকা ফেরত প্রদান কালে এ অভিযোগের সত্যতা মিলে। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ইউনিয়ন পরিষদের হলরুমে রানীশংকৈল উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের হিসাবরক্ষক আশরাফ আলীসহ কয়েকজন মিলে মহিলাদের নাম ধরে ধরে ডেকে তাদের টাকা ফেরত দিচ্ছেন। তবে চক্তিনুযায়ী সুবিধাভোগী মহিলাদের আসল টাকায় কত টাকা মুনাফা দেওয়া হয়েছে তা কোন কিছুই না জানিয়ে ইচ্ছেমত সঞ্চয়ের টাকা ফেরৎ প্রদান করতে দেখা গেছে, সুবিধাভোগী মহিলা মুংলি রানী জানান, তার সঞ্চয়ের টাকা ও মুনাফাসহ মোট টাকা হয়েছে ৪৫০৩ টাকা তবে তিনি হাতে পেয়েছেন ৪৪৮০ টাকা। একইভাবে তানজিলা, স্বামী-উনসাহাক তার মুনাফাসহ মোট টাকা ২০৫০ তিনি পেয়েছেন ১৮৭০, শরীফা স্বামী-আজিজুর তার জমা ও মুনাফাসহ টাকা ৩৮৭০ তিনি পেয়েছেন ৩৮৫০ টাকা, মহেসনা, স্বামী-মলেমান তার টাকা ৩৮৭৮ তিনি পেয়েছেন ৩৯৫০ টাকা এভাবে করে প্রত্যেক সুবিধাভোগীর কাছে বিভিন্ন অজুহাতে টাকা কেটে নেওয়া হচ্ছে। আবার পরিষদ হলরুম থেকে টাকা নিয়ে বের হওয়ার সময় গেটে ১০ টাকা করে নিচ্ছেন গ্রাম্য পুলিশ। জানা যায়, এখানে সুবিধাভোগীর সংখ্যা রয়েছে ২৬৫৩ জন। সেখানে যদি গড়ে ৩০ টাকা করেও কেটে নেওয়া হয় তাহলে প্রায় ৭৯৫৯০ টাকা গোচ্ছা যাচ্ছে তাদের। মহিলা বিষয়ক সূত্রে জানা যায়, খাদ্য শষ্যর আওতায় সুবিধাভোগী মহিলাদের ভাগ্য উন্নয়নে ২০১৭-২০১৮ চক্রের ২৬৫৩ জন মহিলা প্রতি মাসে দুইশত টাকা হারে জমা করবে। মেয়াদ শেষে ব্যাংকের নিয়মনুযায়ী মনাফাসহ মোট টাকা ফেরত দেওয়ার বিধান রয়েছে। উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আবিদা সুলতানা, সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, অভিযোগটি অস্বীকার করে বলেন এ যাবৎ তিনটি ইউনিয়নে টাকা বিতরণ করা হয়েছে, এমন অভিযোগ শুনিনি। তবে রেভিনিউ টিকিটের জন্য ১০ টাকা করে নেওয়ার বিধান রয়েছে। রানীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সোহাগ চন্দ্র সাহা, সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এভাবে তো টাকা নেওয়ার কথা নয়, আমি বিষয়টি দেখছি। সুবিধাভোগী মহিলাদের দাবী অভিযোগটি জরুরীভাবে উদ্ধোর্তন কর্তপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন।

আপনার মতামত দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.